স্বামী দে’খতে সুন্দর নন, তাই অন্য পুরুষের কাছ থেকে সন্তান নিলেন স্ত্রী

আই-ভি-এফ এই পদ্ধতির কথা আম’রা অনেকে হয়তো জানি, আবার অনেকে হয়তো জানিনা। তো যারা জানিনা তাদের জন্য খুব সহ’জ করে বলতে গেলেবলতে হয় ‘ভিকি ডোনারের’ সিনেমা’র গল্প যা আম’রা প্রায় সবাই জানি। সিনেমাটা আম’রা সবাই প্রায় দেখেছি। তিনি ম’হিলাদের স্পা’র্ম ডোনেট ক’রতেন,

যে স্পা’র্ম ডোনেট করে স’ন্তান উৎপাদন করাটা বর্তমানের একটি খুবই স্বা’ভাবিক প্রক্রিয়া। এই প্রক্রিয়াটার নামই হচ্ছে আই ভি এফ। বর্তমানে যাদের স’ন্তান নেই, এমন অনেক ম’হিলাই এখন এই স্পা’র্ম ডোনারের মাধ্যমে স’ন্তান নিচ্ছেন, কৃত্রিম উপায়ে স’ন্তান উৎপাদনে এই প্রক্রিয়া।

এক যুগান্তকারী পরিবর্তন এনেছে। কিন্তু এখন আপনাদের আমি যে ম’হিলার কথা বলবো তার কথা শুনে আপনি রীতিমত চ’মকে যাবেন। আসুন জে’নে নেওয়া যাক পুরো গল্পটা। জা’না গেছে যে এই ম’হিলা প্রায় তিন বছর হল বিবা’হিতা এবং তার কোন স’ন্তান নেই, সেহেতু তিনি একটি স’ন্তান নিতে চান। এই জন্য তিনি একজন শু’ক্রাণু দাতার সন্ধান করছিলেন, স’ন্তান ধারনে অখ্যম অনেক ম’হিলাই এই সি’দ্ধান্ত নেয়।

কিন্তু এ আবার কি কথা, সেই ম’হিলা এই কারনে মোটেও স’ন্তান চান না যে তিনি স’ন্তান উৎপাদনে অখ্যম। বরং তিনি জা’নান যে তার স্বা’মী দে’খতে খা’রাপ তাই তিনি তার স্বামির থেকে স’ন্তান চান না বরং অন্য পু’রুষের থেকে স’ন্তান চান। তার স্বামির বক্তব্য “আমি আমা’র স্ত্রী’র সাথে যখন বাচ্চার কথা বলি,

তখন আমা’র স্ত্রী’ বলে যে তিনি একজন স্পা’র্ম ডোনারের কাছ থেকেই স’ন্তান চান। এর পিছনে আমা’র স্ত্রী’ এটাও যু’ক্তি দিয়েছিল যে, যদি এই পদ্ধতিতে স’ন্তান নেয়, তাহলে আমাদের স’ন্তান জীবনে অনেক এগিয়ে চলবে এবং ভালো থাকবে।”

তবে প্রথমে তিনি বি’ষয়টি বুঝতে না পারলে সে আবার তার স্ত্রী’কে জিজ্ঞেস করেন যে আ’সলে কি জন্য সে এটা চায় ? উত্তরে তার স্ত্রী’ তাকে বলে যে,“তিনি যদি আক’র্ষণীয় এবং বুদ্ধিমান ব্য’ক্তির শু’ক্রাণু থেকে স’ন্তানের জ’ন্ম দেন তাহলে সে আগামী জীবনে বহুক্ষেত্রেই এগিয়ে থাকবে।”

আ’সল কারন খুঁজতে তার স্বা’মী জানিয়েছেন যে, তার স্ত্রী’ যে শু’ক্রাণু দাতার শু’ক্রাণু চান তার সাথে অনেক আগে থেকেই স’ম্পর্ক আছে তার স্ত্রী’’র, তাই তিনি আদলতে একটি ডি’ভোর্সের মা”মলা ক’রেছেন। এই প্র’তিবেদনের সত্যতা দি থার্ড বেল যাচাই করেনি, ভা’রতীয় একটি দৈনিক ওয়েব পোর্টাল থেকে ত’থ্য সংগ্রহ করে এই প্র’তিবেদনটি বানানো

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *